কপি পোস্ট করলে ভবিষ্যতে নিজের সাইটে কি ধরনের ক্ষতি হতে পারে?

প্রিয় ভিজিটর আশা করি সকলে অনেক ভালো আছেন। আপনাদেরকে আমাদের এই সাইটে জানাই আন্তরিক স্বাগতম। আজকের আর্টিকেল এ আমরা কপি পোস্ট চেক করা নিয়ে আলোচনা করবো।

যারা ব্লগিং করে থাকেন তারা কোনো সময়ই চান না যে তাদের সাইটে কোনো প্রকার কপি পোস্ট থাকুক। কেননা কপি পোস্ট থাকলে সাইটে এডসেন্স পাওয়া অনেক কঠিন হয়ে যায় বা পাওয়ায় যায় না। তাই সকল ব্লগার রা ই চান যে তাদের সাইটে যে কোনো কপি পোস্ট বা আর্টিকেল না থাকে।

আবার অন্যদিকে, যারা অন্যর সাইটে আর্টিকেল লিখার কাজ করেন তারা যখন কোনো বিষয় নিয়ে আর্টিকেল লিখে, তখন আর্টিকেল লিখার শেষে তা অবশ্যই চেক করতে হয় যে আর্টিকেল টি কোনো যায়গায় কপি হয়েছে কি না।

এতে করে একজন সাধারণ আর্টিকেল রাইটার হয়ে ওঠেন একজন দক্ষ আর্টিকেল রাইটার। একটি আর্টিকেল সময় ব্যয় করে অনেক কষ্টের পর যদি তা কোনো এক জায়গায় কপি হয় তাহলে তো এর কোনো মূল্যই থাকে না। অনেক সময় অনেকে আর্টিকেল কপি চেক করেন না৷ যে কারণে যদি ভুলবশত কোনো যায়গায় কপি হয়ে যায় তাহলে, কষ্ট করে আর্টিকেল লিখার কোনো মূল্যই থাকে না। তাই আপনিও যদি একজন দক্ষ আর্টিকেল রাইটার হতে চান তাহলে আপনার উচিত একটি আর্টিকেল লিখার পর সেই আর্টিকেল টি কপি কি না সেটা চেক করা। এতে সাইট এবং একজন আর্টিকেল রাইটার দুইজনের ই ভালো হয়।

 

কপি পোস্ট করার কুফল

অনেকেই জেনে না যেনে সাইটে কপি পোস্ট করে থাকে। তবে এটা করা মটেও উচিত নয়। একটি সাইটে ১০ টি পোস্টের মধ্য ১ টি পোস্টেও যদি ১% ও কপি পোস্ট থাকে তাহলে সেই সাইটের অনেকটা ক্ষতি হয়। নিম্নে কপি পোস্টের কুফল বিস্তারিত আলোচনা করা হলোঃ

 

১. গুগল থেকে ট্রাফিক পাবেন না

আপনি যখন অন্যর ব্লগ বা ওয়েবসাইট থেকে অন্যর লেখা আর্টিকেল কপি করে নিজের সাইটে ব্যবহার করবেন, সে সময় হয়তো আপনার সাইটের কোনো ক্ষতি হবে না। তবে মনে রাখবেন আপনার কপি করা আর্টিকেল কিন্তু বেশিদিন গুগলে র‍্যাংক করতে পারবে না।

কিছুদিন পরেই আপনার আর্টিকেল টি গুগলের র‍্যাংক হারাবে। কারণ এখন গুগল বট (Google Bot) অত্যান্ত পরিমাণে আপগ্রেড ও মডার্ন হয়ে উঠেছে।

আর সেজন্যে যেকোনো ধরনের কপি করা পোস্ট গুগল বর্তমানে খুব সহজেই ধরে ফেলতে পারে। এর তাড়াতাড়ি ধরে ফেলার ক্ষমতা রাখে। আপনি যে ব্লগ থেকে আর্টিকেল কপি করতেছেন, সেই সাইটের ওই কন্টেন্ট টি যদি আগে থেকেই গুগলে র‍্যাংক করে থাকে তাহলে গুগলের আপনার পোস্ট টি যে কপি তা বুঝতে ১ সেকেন্ড ও সময় লাগবে না।

 

২. কপি কন্টেন্ট এর জন্য গুগলে রিপোর্ট করুন

কেউ যদি আপনার ওয়েবসাইটের আর্টিকেল কপি করে তাহলে আপনি এর বিরুদ্ধে গুগলে রিপোর্ট করতে পারেন। এবং এই রিপোর্ট টি গুগল খুব সিরিয়াসলি নেবে। কারণ গুগল এখন কপি রাইট নিয়ে অনেকটা সিরিয়াস হতে উঠেছে।

তো কেউ যদি আপনার আর্টিকেল কপি করে থাকে তাহলে Report For Copy Post এ গিয়ে গুগল কে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে রিপোর্ট করুন। গুগল এর বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ নিবে।

 

সাইট ডিলিট হয়ে যেতে পারে

যদি আপনি কোনো বড়, বিখ্যাত ও জনপ্রিয় ওয়েবসাইটের কোনো আর্টিকেল কপি করেন তাহলে এর পরিণাম অনেক ভয়াবহ হতে পারে।

এর ফলে ওই সাইটের সাইটের মালিক আপনার সাইটের উপর DMCA (Digital Millennium Copyright Act) এর অন্তর্গত অভিযোগ দাবি করতে পারে। আর যদি এমন হয় তাহলে আপনার ওয়েবসাইটের উপর DMCA এর তরফ থেকে খুব তাড়াতাড়ি যত টুকু পরিমাণ শক্ত স্টেপ নিতে পারে। এবং DMCA এর আইনের ধারা অনুযায়ী আপনার সাইট ডিলিট ও করা হতে পারে।

কপি পোস্ট সম্পর্কে এত কিছু জানার পর আশা করি আপনি এর পর কখনো আর কপি পোস্ট করবেন না।

 

কপি পোস্ট চেকার

বর্তমানে সবথেকে জনপ্রিয় কপি রাইট চেকার ওয়েবসাইট হলো Duplicheker.com। ব্যক্তিগত ভাবেও আমি নিজেও এই সাইট টি ব্যবহার করি। এই সাইট থেকে আপনি খুব সহজেই আপনার নিজের লেখা আর্টিকেল টি কপি কি না সেটা চেক করতে পারবেন।

 

Duplicheker থেকে কিভাবে কপি পোস্ট চেক করবেন

এই সাইট থেকে কপি পোস্ট চেক করা খুবই সহজ। এর জন্য আপনি নিম্নের স্টেপ গুলো ফলো করুনঃ

১. প্রথমে আপনি Duplicheker.com সাইটে চলে যান।

২. এবার এখানে যাওয়ার পর একটু নিচে নামলেই একটি বক্স পাবেন। সেই বক্সে আপনি আপনার লেখা আর্টিকেল টি দিয়ে দিবেন।

৩. বক্সের একটু নিচে নামলেই একটি রি-ক্যাপচা পাবেন। সেটা পূরণ করে ক্যাপচার নিচের লেখা Check Plagiarism এ ক্লিক করে দিন।

৪. এবার কিছুক্ষন অপেক্ষা করুন আপনার আর্টিকেল এর রেজাল্ট পেতে।

আশা করি আমার আজকের পোস্ট টি আপনাদের ভালো লেগেছে।

এরকম আরো ভালো ভালো আর্টিকেল পেতে আমাদের সাইট ভিজিট করতে থাকুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *