পৃথিবীর পাঁচটি অদ্ভুত ফল সম্পর্কে জেনে নিন

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সকলে অনেক ভালো আছেন। আপনাকে আমাদের সাইটে আবারো স্বাগতম। আজকের আর্টিকেল এ আর কথা না বলে শুরু করা যাক।

আপনারা হয়তো সকলেই তো আম, জাম, কলা, কাঁঠাল, লিচু ইত্যাদি ফল খেয়ে থাকবেন। কিন্তু এই আর্টিকেল এ আমি আপনাদের সাথে এমন পাঁচটি ফলের পরিচয় তুলে ধরবো, যে পাঁচটি ফল হয়তো বা আপনারা এর আগে কখনো খান নি বা দেখেনই নি। এই ফলগুলো খুবই কম পাওয়া যায়। এই ফলগুলো সকল দেশে পাওয়া যায় না। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই ৫ টি ফল সম্পর্কে।

 

পৃথিবীর ৫টি অদ্ভুত ফল

 

Tuna

আপনারা হয়তো বা টুনা নামক মাছটি খেয়েছেন বা সে সম্পর্কে জানতেন। কিন্তু আমি যেটি সম্পর্কে বলছি সেটি কোনো মাছ না সেটি একটি ফল। এটা ক্যাকটাস গাছের মূল কান্ডের উপর জন্মায়। এই ফলটি আপনি মেক্সিকো ছাড়া আর কোনো দেশে পাবেন না। আপনি জেনে অবাক হবে, ম্যাক্সিকোতে এই ফলটি সব ফল গুলোর তুলনায় সর্বোচ্চ দামে বিক্রি করা হয়। এই ফলটি কেটে ভেতরে খাওয়া হয়। এটার ভিতর মিষ্টি জাতীয় পানীয়(এক প্রকার জেলি ও মধুর মিশ্রণ) থাকে। এই ফলটি অনেক সুইট প্রডাক্ট তৈরিতে ব্যবহার করা হয়। কেননা এই ফলটি অনেক মিষ্টি ফল। এই ফলটির ছবি বা বিস্তারিত জানতে আপনারা গুগলে জেতে পারেন।

 

Buddhas Hand

এই ফলটি একটি আজব ও অদ্ভুত ফল। এই ফলটি প্রথমবার দেখলেই যে কেউই মনে করবে এটি কোন ফলই না। এই ফলটি দেখতে হাতের আঙুলের মতো হয়। এটাকে দেখে অনেক সময়ই মনে হয় এটি একটি মৃত অক্টোপাস এর শরীর। এই ফলটি চায়না, জাপান ও কোরিয়াতে অধিক পরিমাণে পাওয়া যায়। দেখতে অনেক বিশ্রি রকমের হলেও এই ফলটি খেতে অনেক মিষ্টি। এই ফলটির মূল্য অনেক বেশি। এশিয়া মহাদেশের দামি ফলগুলোর মধ্যে এই ফলটি একটি ও অন্যতম। সাধারণ হিসাবে এই ফলটির প্রতি কেজি প্রায় সাড়ে চার হাজার টাকা অথবা তার বেশী দামে বিক্রি করা হয়ে থাকে। ইউরোপ ও আমেরিকাতে আরো বেশী দামে বিক্রি করা হয়। এই ফলটির ছবি বা বিস্তারিত জানতে আপনারা গুগলে জেতে পারেন।

 

Noni

এই ফলটি অন্যান্য ফলের ধরন থেকে একেবারেই আলাদা। এটাকে দেখে মনে হয় এটি পনির। কিন্তু এটি পনির নয়। এটি অস্ট্রেলিয়া এবং এশিয়া মহাদেশের কিছু কিছু দেশে পাওয়া যায়। এটি এত জনপ্রিয় ফল যে, যে সব দেশে এটি পাওয়া যায় তার সব দেশে কে আলাদা পদ্ধতিতে তৈরি বা চাষ করা হয়। এই ফলটি কার্যকরিতা শুনলে আপনি অবাক হয়ে যাবেন। এই ফলটি হাই প্রেসার, ক্যান্সার ও স্মৃতি শক্তির জন্য খুবই উপযোগী। শরীরে কোনো পুড়ে যাওয়া অংশে এই ফলটি লাগালে খুব তাড়াতাড়ি সেই পুড়ে যাওয়া জায়গাটি সেরে যায়। অনেক হারবাল কোম্পানি এই ফলের সিরাপ বানিয়ে বিক্রি করে। এই ফলটির ছবি বা বিস্তারিত জানতে আপনারা গুগলে জেতে পারেন।

 

Physalis

ফুলের মতো দেখতে এটি একটি ফল। এটার ভিতর অরেঞ্জবেরি থাকে। সাইজে ছোট হয় এই ফলটি। এটি পাতলা একটি পাতার মতো অংশটি ঢাকা থাকে। এটা গাছ থেকে দেখতে এত সুন্দর লাগে পেরে খেতে মন চায় না। এটাতে ভিটামিন সি রয়েছে, আয়রন ও ক্যালসিয়াম ও এতে প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়। এটা অনেক দুর্লভ ফল। এটাকে সাউথ আমেরিকাতে পাওয়া যায়। কলম্বিয়া ও পেরুতে বেশিরভাগ পাওয়া যায়। আপনি শুনে অবাক হবেন যে এই ফলটি অল্প পরিমাণে বাংলাদেশের কিছু জঙ্গলে পাওয়া যায়। এটি আমাদের কাছে জংলি হলেও অন্যান্য দেশে এই ফলটির দাম অনেক বেশি বাংলাদেশি টাকায় ৫ হাজার টাকা কেজি। এই ফলটির ছবি বা বিস্তারিত জানতে আপনারা গুগলে জেতে পারেন।

 

pineberry

আপনারা হয়তো স্ট্রবেরী খেয়েছেন। স্ট্রবেরির রং সাধারণত লাল হয় এবং এর ওপরে কালো রঙের ছোট ছোট বিজ থাকে। কিন্তু স্ট্রবেরির মতো দেখতে আরো একটি ফল রয়েছে যেটির রং হয় সাদা এবং সেটির উপরে লাল রঙের ছোট ছোট বিজ থাকে একে বলা হয় Pineberry । উপরের অংশ পাইনাপেল এর মত হয়। আর বাকি অংশ স্ট্রবেরির মতো হয় এই ফলটি। তাই পাইনাপেল থেকে পাইন এবং স্ট্রবেরি থেকে বেরি নিয়ে এটার নাম করা হয় পাইন বেরি। সর্বপ্রথম ২০১০ সালে সর্বপ্রথম চাষ করা হয়। চিলি এবং ভিয়েতনামে প্রথম চাষ করা হয় এই ফলটি। এই ফলটির ছবি বা বিস্তারিত জানতে আপনারা গুগলে জেতে পারেন।

তো বন্ধুরা আশা করি আর্টিকেল টি আপনাদের ভালো লেগেছে।

আর প্রতিদিন এমন সব টিপ্স-ট্রিক ও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে জানতে আমাদের সাইট ভিজিট করতে থাকবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *