হাতের লেখা সুন্দর ও দ্রুত করার কিছু কৌশল

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি আপনারা সকলেই ভালো আছেন। আপনাদেরকে আবারো আমাদের সাইটে স্বাগতম। আজকের আর্টিকেল এ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো কিভাবে আপনারা আপনাদের হাতের লেখা সুন্দর ও দ্রুত করবেন। তো চলুন আর কথা না বাড়িয়ে আজকের আর্টিকেল টি শুরু করা যাক।

 

কিভাবে হাতের লেখা দ্রুত ও সুন্দর করবেন?

একজন ব্যক্তির হাতের লেখা সুন্দর নাও হতেই পারে৷ কিন্তু তাই বলে হাতের লেখা খারাপ আছে সেটাকে ঠিক করার চেষ্টা না করলে সেটা খুব একটা ভালো বিষয় না।

সকলেরই অনেক ক্ষেত্রে হাতেরল লেখা সুন্দর করা জরুরি হয়। যেমনঃ এসাইনমেন্ট লেখার সময়, বোর্ড পরিক্ষার সময়, চিঠি লেখার সময়। বিশেষ করে এই ৩ ক্ষেত্রে হাতেল লেখা সুন্দর করে লিখলে ৩ টি ক্ষেত্রেই আপনাদের অনেক লাভ হবে।

অনেক শিক্ষার্থীরা আছেন যারা বাসায় অধিক পরিমাণে পড়াশোনা করার পরও পরিক্ষায় পড়ার তুলনায় ভালো মার্কস পায় না। এর কারণ হলো পরিক্ষায় আশা প্রশ্ন এর উত্তর ঠিক মতো দিতে পারলেও তাদের হাতের লেখা খারাপ হওয়ার জন্য ভালো মার্কস পায় না।

তাই সকলের উচিত নিজের হাতের লেখা টি ভালো করা। কিন্তু আপনারা হয়তো ভাবছেন হাতের লেখা সুন্দর করবো বললেই কি করা যায়?

উঃ হ্যা করা যায়। তবে সে জন্য আপনাদের দৃঢ় মনোবল রাখতে হবে। এবং কিছু বিষয় মেনে চলতে হবে। তাহলে আপনাদের হাতের লেখাও অনেকটা সুন্দর হয়ে যাবে।

তো চলুন এবার দেখে নেই হাতের লেখা সুন্দর করার কৌশল ও স্টেপ গুলোঃ

 

হাতের লেখা দ্রুত ও সুন্দর করার কৌশল

 

লেখার জন্য শুধু মাত্র ওজনে হাল্কা কলম ব্যবহার করা

অনেকে আছেন যারা লেখার জন্য ও নিজেকে একটু বন্ধুদের সামনে এডভান্স দেখানোর জন্য অনেক প্রকার দামি ব্যান্ডের কলম ও ডিজাইনিং কলম ব্যবহার করে থাকেন।

তবে এটা করার ফলে আপনি আপনার বন্ধুদের সামনে এডভান্স তো হয়ে যান কিন্তু কলম ওজনে ভারি হওয়ায় আপনার লেখার স্পিড কমে যায় এবং একটানা বেশিক্ষন লিখলে হাতও ব্যাথা হয়ে যাবে এর ফলে লেখা খারাপ হয়ে যায়। তাই সব সময় চেষ্টা করবেন ওজনে হাল্কা এমন কলম ব্যবহার করার।

 

লেখার সময় কলমের ক্যাপ কলমের পেছনে না লাগানো

অনেকে আছেন যারা লেখার সময় কলমের ক্যাপ কলমের পেছনে লাগিয়ে নেন। তবে এটা করলে আপনার হাতের লেখা খারাপ হয়ে যেতে পারে। কারণ কলমের ক্যাপ কলমের পেছনে লাগালে কলম কিছুটা হলেও ভারি হয়ে যাবে। যার ফলে হাতের লেখার স্পিড কমে যাবে এবং কলম কে ঠিক যে ভাবে হাতের মধ্য যে ডিগ্রি (°) তে থাকা উচিত তা থাকবে না।

তাই লেখার সময় মনে করে কলমের ক্যাপ টি খুলে অন্য কোথাও রেখে তারপর লিখা শুরু করবেন।

 

কলম কেনার সময় ভালো গ্রিপওয়ালা কলম কেনা

এখানে গ্রিপ বলতে শুধু যে রাবার এর গ্রিপ হবে তা না৷ গ্রিপ বলতে বুঝানো হয়েছে কলম দিয়ে লেখার সময় আমরা যে যায়গা হাতের আঙুল রাখি সেই যায়গায় কোনো প্রকার হাল্কা ধরনের ডিজাইন থাকা। বাজারে সাধারণত দুই ধরনের কলম কিনতে পাওয়া যায়৷

১। গ্রিপ ওয়ালা কলম,
২। গ্রিপ ছাড়া কলম,

গ্রিপ ছাড়া কলম দিয়ে লেখার সময় হাত ঘেমে গেলে বার বার পিছলে যাওয়ার সমভাবনা থাকে। তাই কলম কেনার সময় দেখে শুনে গ্রিপওয়ালা কলম কিনবেন।

 

কোনো টপিক পড়ার পর তা বার বার লিখা

স্কুলের বা কোচিং এর কোনো রিডিং পড়া দিলে তা পড়ার পর বার বার দেখে বা না দেখে খাতায় লিখবেন। এতে করে আপনার হাতের লেখা দ্রুত হবে। এবং আপনি বুঝতে পারবেন আপনার কোন যায়গায় হাতের লেখা টি খারাপ হচ্ছে। এবং সে ভাবে আপনি নিজেই নিজের হাতের লেখা ঠিক করে নিতে পারবেন।

এর ফলে আপনি আপনার পড়া মনে রাখার সাথে সাথে হাতের লেখাকে দ্রুত ও সুন্দর করতে পারবেন।

তো বন্ধুরা আমি আশা করছি যে আমি বুঝাতে পেরেছি যে কিভাবে হাতের লেখা দ্রুত ও সুন্দর করতে হয়।

এখানের সব গুলো স্টেপ ই খুব জরুরি কিন্তু এর মধ্য ৪ নং স্টেপ টি অধিক পরিমাণে জরুরি৷ তাই ৪ নং স্টেপ টি সকলে বেশি বেশি করে করবেন।

আর আজকের আর্টিকেল কেমন লাগলো তা কমেন্ট করে জানাবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *